সরকার নির্ধারিত দামে কিনছে না ট্যানারি মালিকরা, বিপাকে সাতক্ষীরার চামড়া ব্যবসায়ীরা

প্রকাশিত: ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২১ | আপডেট: ১১:৫৮:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২১
সাতক্ষীরায় বিপাকে চামড়া ব্যবসায়ীরা শেষ সময় লবন দিয়ে চামড়া প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সময় পার করছে চামড়া শ্রমিকরা। ছবিটি সোমবার সকালে তোলা হয় পাটকেলঘাটা বাজার থেকে।

চামড়া পাচার প্রতিরোধে সাতক্ষীরার ২৩৮ কিলোমিটার সীমান্ত জুড়ে বিজিবি ও পুলিশসহ আইনশৃখংলা বাহিনীর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

ঈদুল আযহার পরে কোন চোরাকারবারী যাতে বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতে কোন পশুর চামড়া পাচার করতে না পারে সে জন্য সীমান্ত জুড়ে কঠোর নজরদারী বলে জানিয়েছে বিজিবি।

সাতক্ষীরার স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, সরকার চামড়ার দাম নির্ধারিত করে দিলেও ট্যানারি মালিকরা সেই দামে চামড়া কিনছে না অভিযোগ সাতক্ষীরার স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীদের।

তারা বলছে, সরকারের নির্ধারিত মূল্যে চামড়া কিনে তার থেকে কম দামে বিক্রি করতে বাধ্য হয় চামড়া ব্যবসায়ীরা। এবছর প্রতি পিচ গরুর চামড়া দুইশত থেকে সাড়ে চারশত টাকা ও ছাগলের চামড়া ২০ থেকে ২৫ টাকা দামে বিক্রি হয়েছে।

চামড়া ব্যবসায়ীরা বলছেন, গ্রাম ও পাড়া মহল্লায় ঘুরে সরকারের নির্ধারিত মূল্যে চামড়া কিনে ট্যানারি মালিকদের কাছে কম দামে বিক্রি করতে বাধ্য হয় চামড়া ব্যবসায়ীরা। ট্যানারি মালিকরো সরকারের নির্ধারিত দাম দেচ্ছেনা বলে অভিযোগ করেছেন চামড়া ব্যবসায়ীরা।

চামড়া শিল্পে জড়িত শ্রমিক মনোরঞ্জন দাশ, বাসুদেব দাশ সহ অনেকেই জানান, চামড়ার দাম কম থাকা তাছাড় ঢাকার মালিকরা বছরের পর বছর পাওয়ানা টাকা শোধ না করায় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা চামড়া ক্রয় করছেনা ফলে চামড়ার আড়তে খেটে খাওয়া মানুষ গুলি ভুগছে আর্থিক সংকটে।

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটার চামড়া ব্যবসায়ী মহাদেব দাশ জানান, সরকার চামড়ার দাম নির্ধারিত করে দিলেও ট্যানারি মালিকরা সেই দামে চামড়া কিনছে না বলে অভিযোগ করেছেন। সরকারের নির্ধারিত মূল্যে চামড়া কিনে তার থেকে কম দামে বিক্রি করতে বাধ্য হয় চামড়া ব্যবসায়ীরা।
মহাদেব দাশ আরও জানান, ট্যানারি মালিকরা বিগত ৮ বছরেও টাকা এখনও পরিশোধ করেনি-অভিযোগ স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীদের।

সাতক্ষীরা জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ ওলিউর রহমান জানান, চামড়ার প্রকৃত মূল্য প্রাপ্তির পাশাপাশি চামড়া শিল্পকে সেন্ডিকেটের হাত থেকে রক্ষা করতে হলে, কাঁচা চামড়া বিদেশে রপ্তানির ব্যবস্থা করতে হবে বলে মনে করেন স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীরা।

সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ আল-মাহমুদ জানান, চামড়া পাচার প্রতিরোধে সাতক্ষীরার ২৩৮ কিলোমিটার সীমান্ত জুড়ে বিজিবি ও পুলিশসহ আইনশৃখংলা বাহিনীর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

বিজিবি অধিনায়ক আরও জানান, ভারতে চামড়া পাচার করতে না পারে সেজন্য জেলার সীমান্ত এলাকাজুড়ে বিজিবি বিশেষ সতর্কাবস্থায় রয়েছে। তাছাড়া স্থানীয় মাদ্রাসার দিকেও নজর রয়েছে বিজিবির।

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মাদ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, চামড়া পাচার রোধে বিজিবির পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশ চেকপোস্ট বসানোসহ গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করা হয়েছে। তিনি আরও জানান , সীমান্ত দিয়ে কোন চোরাচালানীরা চামড়া পাচার করতে না পারে সেজন্য পুলিশের চেকপোস্ট বসানোসহ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে

এদিকে বিদেশে চামড়ার চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কিছু সংখ্যক ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেটের কারনে চামড়ার সঠিক দাম পাচ্ছেনা স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ীরা। তারা মনে করেন, কাঁচা চামড়া বিদেশে রপ্তানি করা গেলে বাংলাদেশে চামড়া শিল্প সোনালী সম্পদে পরিনত হবে।

 

 

এসজি/ডেক্স


আপনার মতামত লিখুন :

নিজস্ব প্রতিবেদক। ডেক্স