৬৪ জেলা সাইকেলে ভ্রমন করলেন কেশবপুরের সন্তান হেলাল

প্রকাশিত: ৫:০৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০২১ | আপডেট: ৫:০৬:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০২১

যশোরের কেশবপুরের হেলাল উদ্দিন ৫১ দিনে দেশের ৬৪ জেলা ভ্রমন করেছেন। শুধু ভ্রমণ করেনি দেখেছেন বাংলাদেশের দর্শনীয় বিভিন্ন স্থান, উপভোগ করেছেন বাংলাদেশের অপরুপ সৌন্দর্য। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ২য় বর্ষের আইন বিভাগের ছাত্র হেলাল উদ্দীন। মঙ্গলবার সকালে কেশবপুর প্রেসক্লাবে একান্ত সাক্ষাতকারে হেলাল উদ্দিন বলেন, ছোটবেলা থেকে সাইকেল চালানো শখ।

২০১৬ সালে বাড়ি থেকে না বলে কুয়াকাটা চলে যায়। রুমমেন্ট ইকবল হোসেন শুধু জানতো। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ২য় বর্ষে আইন বিভাগের শিক্ষার্থী হেলাল উদ্দীন বাড়ি থেকে ১ সপ্তাহের কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় সাইকেল ভ্রমণ করার জন্য নিজের গচ্ছিত ৯ হাজার ৫শত টাকা নিয়ে বের হয় ১৫ জানুয়ারি। খুলনা থেকে ভ্রমণ শুরু করে ৬ মার্চ সাতক্ষীরা জেলায় যেয়ে শেষ হয়। এ পর্যন্ত ২২ থেকে ২৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। ৫২ দিনের মধ্যে হোটেলে ও ডাকবাংলোতে ১৯ দিন । বাকী ৩২ দিন ফ্রেন্ড ও আত্বীয় বাড়িতে থেকেছেন। ফেসবুকে দেখে সবাই আমাকে অনুপ্রণিত করেছে। পরবর্তীতে বাড়ি থেকে আব্বা ও আম্মা খরচ পাঠায়। এছাড়া আমার স্যার ,বন্ধু বান্ধবী ও আত্বীয় স্বজনরা সহযোগীতা করেন। নেত্রকোনায় পরিচিত হয় মামুনুর রহমান নামে এক চাকুরীজিবীর সাথে তিনি সকালে আমাকে নাস্তা করান। নাস্তা শেষে হাতে টাকা গুজে দেয়। সব থেকে বেশী আতিয়েতা করেছে নোয়াখালীতে । প্রথমে মানুষের কাছ থেকে রাস্তার লোকেশন নিতে পরবর্তীতে গুগল ম্যাপের মাধ্যমে যাতায়াত শুরু করেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ইয়ামীন ইস্কা রহমান স্যার রাজশাহীতে থাকার ব্যবস্থা করে দেন। কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর গ্রামের আজিমুদ্দিন ও সুখজান বিবির কনিষ্ঠ ছেলে হেলাল উদ্দিন। তিন ভাই বোনের পরিবারে বড় দুই বোনের আদরের ছোট ভাই হেলাল। তিনি কেশবপুর বাহরুল উলুম কামিল মাদ্রাসা থেকে ২০১৫ সালে দাখিল ও ২০১৭ সালে আলিম স¤পন্ন করেন। একসময় এই দ্বিচক্রযানে চড়ে ভ্রমণের ইচ্ছে পেয়ে বসে হেলালকে।

২০১৬ সালে নিজ জেলা যশোর থেকে কুয়াকাটা পর্যন্ত গেছেন সাইকেল চালিয়ে। সেটি ছিলো ৮ দিনের ভ্রমণ। অজানাকে জানা, অচেনাকে চেনা আর অসম্ভবকে সম্ভব করাই যে তারুণ্যের কাজ, সেইটা প্রমাণ করলেন হেলাল। তার সেই অদম্য ইচ্ছাশক্তিকে নিয়ে সাফল্যের স্বর্ণশিখরে পৌঁছানোর জন্য গত ১৫ জানুয়ারি ভোর বেলা দেশের ৬৪ জেলা ঘুরে দেখতে নিজের দ্বিচক্রযান নিয়ে বেরিয়ে পরেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভিাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ হেলাল উদ্দিন। হেলালের যাত্রা শুরু খুলনা বিভাগীয় শহর থেকে এবং ৬ মার্চ সাতক্ষীরা জেলায় ৫১ দিনের যাত্রা শেষ হয়। মূলত দেশের ৬৪ জেলার সৌন্দর্যকে কাছ থেকে উপভোগ করতে এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষের জীবন ও সংস্কৃতি দেখার তীব্র ইচ্ছা থেকে নিজের পবিবেশ বান্ধব বাইসাইকেলে নিয়ে দেশের সবকয়টি জেলা ঘুরে এসেছেন কেশবপুরের ছেলে।

সাইকেল ভ্রমণের সময় খাগড়াছড়ির রিছান ঝণা নীচ থেকে ছবি তুলতে গিয়ে পড়ে য়েয়ে। সাইকেল টা পাহাড়ের উপর ছিলো। নাক ও দাত ফেটে যায়। হেলাল বলেন, মূলত বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষের জীবন ও সংস্কৃতি দেখার ইচ্ছা থেকেই আমার এই ভ্রমনের শুরু। ৬৪ জেলা ভ্রমন করার মাধ্যমে আমি বাংলাদেশের অনেক ঐতিহাসিক ও প্রাচীন স্থাপনা দেখতে পেরেছি এবং নতুন নতুন জায়গা ও মানুষের সংস্কৃতিকে জানার সুযোগ পেয়েছি।

হেলাল তার এই অর্জনকে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনকারী সকল দেশপ্রেমিক দের উৎসর্গ করেন। এই বছরের ডিসেম্বরে বাংলাবান্ধা থেকে টেকনাফ পর্যন্ত একটা ক্রস কান্ট্রি রাইডের ইচ্ছা পোষন করেছেন হেলাল উদ্দিন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

মশিয়ার রহমান। নিজস্ব প্রতিবেদক। কেশবপুর, যশোর