ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনে প্রস্তুত হচ্ছে শ্যামনগর

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২১ | আপডেট: ১:৩৮:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২১

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আমাদের রাষ্ট্রীয় অতিথি। তার আগমনে সাতক্ষীরা জেলাবাসী ধন্য হবে। সকলে এক সাথে কাজ করে সফল অনুষ্ঠান করতে হবে। তিনি এই এলাকা সফর করার পর শ্যামনগর শুধু বাংলাদেশে নয় ভারতেও ফোকাস হবে। পুরো ভারতবর্ষ শ্যামনগর সম্পর্কে জানবে। মেহমানকে কিভাবে আপ্যায়ন করতে হয় এই এলাকার মানুষ সেটা জানে। আমাদের আতিথিয়তা সম্পর্কে তাদের জানাতে হবে। এর মাধ্যমে এলাকার পর্যটন শিল্প বিকশিত হবে।

আগামী ২৭ মার্চ সকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাতক্ষীরা শ্যামনগরের যশোরেশ্বরী কালীমন্দির পরিদর্শন ও পূজা অর্চনা উপলক্ষে প্রস্তুতিমুলক সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার ইসমাইল হোসেন এসব কথা বলেন।

তিনি সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, আপনাদের কোন সমস্যা থাকলে আগে থেকে বলতে হবে। অনুষ্ঠানে কোন প্রকার বিঘœ ঘটলে পুরোদায়ভার আমাদের উপর পড়বে। এখানকার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)। তাদের চাহিদা অনুযায়ী আমাদের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সাহায্য করা হবে। সে উপলক্ষে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনটি হেলিপ্যাড নির্মাণ, মন্দির সংস্কারসহ সকল কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

শুক্রবার বিকালে উপজেলার ঈশ্বরীপুর যশোরেশ্বরী কালিমন্দির প্রাঙ্গণে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার ইসমাইল হোসেন (এনডিসি)। খুলনা বিভাগীর রেঞ্জ ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন, সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, নিলডুমুর বিজিবি রিভাইন কমান্ডিং অফিসার লে. কমান্ডার মিল্টন কবীর, সিভিল সার্জন ডা: মোহাম্মদ হুসাইন সাফায়েত, শ্যামনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুজর গিফারী, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হুদা, কৈখালী কোষ্টগার্ড কর্মকর্তা আলম, সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার সন্তোষ কুমার, যশোরেশ্বরী কালি-মন্দিরের পুরোহিত দিলীপ মুখার্জীসহ বিভাগীয় ও সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা প্রমুখ।

খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি ডা. খন্দকার মহিদ উদ্দীন বলেন, নরেন্দ্র মোদি আমাদের এখানে আসবেন এটি আমাদের জন্য সুখের বার্তা। মেহমানের মেহমানদারী করার ঐতিহ্য আমাদের আছে। নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব আমাদের সেটা আমরা করবো। প্রত্যেক সংস্থাকে সতর্ক থাকতে হবে। যাতে সুন্দর করে আথিতিয়তা করে তাকে নিরাপদে বিদায় দিতে পারি। প্রচেষ্টা থাকলে সেটা অসম্ভব কিছু না। স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) পক্ষ থেকে নির্দেশনা পাওয়া যাবে। আমাদের সেইভাবে কাজ করতে হবে। অথিতির কোন প্রকার সমস্যা না হয় সে দিকে খেয়াল করতে হবে। স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) দায়িত্বে থাকলেও পুলিশের যথাযথ দায়িত্ব পালন করে যেতে হবে। যেখানে যা সমস্যা এখনই চিহ্নিত করতে হবে। অতিথির আপ্পায়নের বা নিরাপত্তায় কোন রকম সমস্যা হলে দায়িত্বে থাকা সকলে যথাযথভাবে জবাব দিতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সরকারের নির্দেশনানুযায়ী সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শ্যামনগরের ঈশ্বরীপুর যশোরশ্বরী মন্দির পরিদর্শনে জেলাবাসীর জন্য স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং মুজিব বর্ষের বড় উপহার। এই সময় জেলা প্রশাসক হিসেবে থাকতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। শ্যামনগরবাসীর পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমরা স্বাগত জানাবো।

তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রীয় অতিথির সামনে জেলার ইতিহাস ঐতিহ্য ফুটিয়ে তুলতে কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। গণপুর্ত বিভাগের মাধ্যমে এই কাজটি করা হবে। হেলিপ্যাড থেকে মন্দির প্রাঙ্গন পর্যন্ত মুজিববর্ষ এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন সেটিও ফুটিয়ে তোলা হবে। সেটা করতে সকল বিভাগের কর্মকর্তারা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমাদের বন্ধু দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রী এই জেলায় আসছে এটি বড় আনন্দের খবর। অনুষ্ঠান সূচিতে আধাঘন্টা বলা হলেও চার ঘন্টার প্রস্তুতি রাখতে বলা হয়েছে। অতিথি আমাদের জন্য অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণব্যক্তি। তার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নিñিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। নিরপত্তার ব্যাপারে জিরো টলারেন্স থাকবে।

অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় মন্দির সংশ্লিষ্ট ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

নিজস্ব প্রতিবেদক। ডেক্স