তালায় এক মহিলাকে হয়রানী চেষ্টার অভিযোগ

প্রকাশিত: ৭:৫০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০ | আপডেট: ৭:৫০:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০

এম,এ,মান্নান, তালা(সাতক্ষীরা):
পারিবারিক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তালা উপজেলার বারাত গ্রামের নিরিহ গৃহবধু মর্জিনা বেগম এবং তার স্বামী একব্বার সরদারকে হয়রানীর চেষ্টা করা হচ্ছে। একই গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা কাছমিনা বেগম পরিকল্পিত ভাবে স্পর্শকাতর অভিযোগ তুলে তাদের হয়রানীর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
তালার বারাত গ্রামের মৃত ইমান আলীর ছেলে একব্বার সরদার ও তার নিরিহ স্ত্রী মর্জিনা বেগম বলেন, প্রতিবেশি কেরামত আলীর স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে কাছমিনা বেগমের সাথে তাদের পূর্ব থেকে পারিবারিক বিরোধ চলছিল। এনিয়ে তারা বিভিন্ন সময়ে নানাবিধ হুমকি প্রদান করে, যা এলাকার অনেকেই অবগত।

সোহাগ মাল্টিমিডিয়া এন্ড ট্র্যাভেলস

মর্জিনা বেগম বলেন, কাছমিনা বেগমের আত্মীয় তালা সদরের খানপুর গ্রামের মৃত হাশেম সরদারের ছেলে সাদ্দাম হোসেন রাজ মিস্ত্রীর কাজ করতে আসে এবং কাজ শেষ করে শ্রমের টাকা নিয়ে চলে যায়। এরআগ থেকে রাজ মিস্ত্রী সাদ্দাম হোসেন ঘনিষ্ট আত্মীয়তার সূত্রে কাছমিনা বেগমদের বাড়িতে যাতায়াত করতো। কিন্ত এরইমধ্যে সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় কাছমিনা বেগম সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে সাদ্দামের বিরুদ্ধে উত্ত্যাক্ত করা সহ নানান বিষয়ে অভিযোগ তোলে। যেখানে নিরিহ মর্জিনা বেগকে জড়িয়ে তার বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ভাবে হয়রানীকর ও অপমাননাকর তথ্য উত্থাপন করা হয়। গ্রামের কিছু কূচক্রী মহলের ইন্দনে, কাছমিনা বেগম পূর্ব বিরোধের জের ধরে নিরিহ মর্জিনা বেগম এবং তার পরিবারকে সমাজে হেয় সহ প্রশাসনিক ভাবে হয়রানী করতে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে বলে- ভুক্তভোগীরা জানান। বিতর্কীত কাছমিনা বেগম কর্তৃক সামাজিক ভাবে চরম অপমাননাকর ও হয়রানী চেষ্টা ঘটনার প্রতিকার পেতে মর্জিনা বেগম সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানাগেছে।

সুন্দরবনটাইমস.কম/নিজস্ব প্রতিবেদক


আপনার মতামত লিখুন :

নিজস্ব প্রতিবেদক